মুমিনের আচার-ব্যবহার যেমন হওয়া উচিত

0 ৯৭

আহমাদ রাইদ,

মানুষের চাল-চলনে অনেক সময় গর্ব-অহংকার প্রকাশ পায়। মহান আল্লাহ মানুষকে পৃথিবীতে অহংকারবশে চলতে নিষেধ করেছেন। তিনি বলেন, ‘পৃথিবীতে দম্ভভরে পদচারণ করো না। নিশ্চয়ই তুমি কখনোই ভূপৃষ্ঠকে বিদীর্ণ করতে পারবে না এবং উচ্চতায় কখনোই পর্বত প্রমাণ হতে পারবে না।’ (বনু ইসরাঈল, আয়াত : ৩৭)

পক্ষান্তরে চাল-চলনে মধ্যপন্থা অবলম্বনের নির্দেশ দিয়ে আল্লাহ বলেন, ‘চাল-চলনে মধ্যপন্থা অবলম্বন করো, কণ্ঠস্বরকে নিম্নগামী রাখো। নিশ্চয়ই নিকৃষ্ট আওয়াজ হচ্ছে গাধার আওয়াজ।’ (সুরা লুকমান, আয়াত ১৯)

চাল-চলনে মধ্যপন্থা অবলম্বনের প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন রাসুল (সা.)। ইবন আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী করিম (সা.) বলেন, ‘সচ্চরিত্রতা, উত্তম চাল-চলন এবং মধ্যপন্থা অবলম্বন নবুয়তের ২৫ ভাগের এক ভাগ।’ (আবু দাউদ, হাদিস : ৪৭৭৬)

আচার-ব্যবহারে মধ্যপন্থা

মুসলমানদের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে আচার-ব্যবহারে বিনয়ী ও নম্র হওয়া। হাদিসে এসেছে, আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী করিম (সা.) বলেছেন, ‘ঈমানদার হয় সরল ও ভদ্র। পক্ষান্তরে পাপী হয় ধূর্ত ও হীন চরিত্রের।’ (আবু দাউদ, হাদিস : ৪৭৯০)

মহান আল্লাহ তাঁর রাসুলকে মুসলমানদের প্রতি বিনয়ী ও সদয় হওয়ার নির্দেশ দিয়ে বলেন, ‘যারা তোমার অনুসরণ করে, সেসব বিশ্বাসীর প্রতি সদয় হও।’ (সুরা শুআরা, আয়াত ২১৫)

মুমিনদের পারস্পরিক আচার-ব্যবহার সম্পর্কে মহান আল্লাহ বলেন, ‘হে ঈমানদাররা, তোমাদের মধ্যে কেউ তার দ্বিন থেকে ফিরে গেলে নিশ্চয়ই আল্লাহ এমন এক সম্প্রদায় সৃষ্টি করবেন, যারা হবে আল্লাহর প্রিয় এবং আল্লাহ হবেন তাদের প্রিয়। তারা মুমিনদের প্রতি নম্র ও বিনয়ী হবে এবং কাফিরদের প্রতি হবে অত্যন্ত কঠোর।’ (সুরা মায়েদা, আয়াত ৫৪)

মহান আল্লাহ রাসুল (সা.)-কে লক্ষ্য করে বলেন, ‘আল্লাহর রহমতেই আপনি তাদের জন্য কোমল হৃদয় হয়েছেন। পক্ষান্তরে আপনি যদি রুক্ষ ও কঠোর হৃদয়ের অধিকারী হতেন, তাহলে তারা আপনার কাছ থেকে দূরে চলে যেত। কাজেই আপনি তাদের ক্ষমা করে দিন ও তাদের জন্য মাগফিরাত প্রার্থনা করুন এবং তাদের সঙ্গে বিভিন্ন কাজে পরামর্শ করুন।’ (সুরা আলে ইমরান, আয়াত ১৫৯)

আচার-আচরণে বিনয়ী হলে মহান আল্লাহ মর্যাদা বাড়িয়ে দেন। আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘দানের দ্বারা সম্পদ কমে না। বান্দার ক্ষমার গুণ দ্বারা আল্লাহ তার সম্মান বৃদ্ধি করেন। কেউ আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে বিনয় ও নম্রতা অবলম্বন করলে আল্লাহ তার মর্যাদা বাড়িয়ে দেন।’ (মুসলিম, হাদিস : ২৫৮৮

রিপ্লাই করুন

Your email address will not be published.